বরিশাল ০৯:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
উজিরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত ৩ মির্জাগঞ্জে প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন মঠবাড়িয়ায় প্রধান শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হারিছুর রহমানের সমর্থনে বার্থীতে কর্মী সমাবেশ কারাগারের ভিতরে নারী কয়েদির সঙ্গে কারারক্ষীর অনৈতিক সম্পর্ক, অতঃপর… পটুয়াখালীতে গুনী সাংবাদিক নিয়াজ মোর্শেদ সেলিম আর নেই উজিরপুরে মাদক মামলার সংবাদ প্রকাশ করায় জামিনে এসে সাংবাদিকের ওপর হামলা উজিরপুরে শুরু হলো আড়াইশো বছরের ঐতিহ্যবাহী কাটাগাছ তলার বৈশাখী মেলা জুনের মধ্যে অর্থনৈতিক অবস্থা স্বাভাবিক হবে- এমপি মেনন রাজাপুরে বৈশাখী আনন্দে ঘুড়ি উৎসব অনুষ্ঠিত

পুতিনকে শেষ না করা পর্যন্ত যুদ্ধ শেষ হবে না: জেলেনস্কি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৪১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৪ ৫০ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক—  ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রুশ প্রেসিডেন্টে ভ্লাদিমির পুতিন এই যুদ্ধ শেষ করবেন না, যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা সবাই মিলে তাকে শেষ করছি। তবে আমরা প্রমাণ করেছি যে রাশিয়াকে প্রতিহত করা সম্ভব। বুধবার (১০ জানুয়ারি) আকস্মিক সফরে ইউরোপের দেশ লিথুয়ানিয়া সফরে গিয়ে এমন মন্তব্য করেন জেলেনস্কি।

টানা প্রায় দুই বছর ধরে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান চলছে। এই যুদ্ধের শুরু থেকেই ইউক্রেনকে সামরিক ও আর্থিক সহায়তা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র সহ ইউরোপের অন্য মিত্ররা। তবে যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দল ও পশ্চিমা মিত্রদের অনেকে সেই সহযোগিদা অব্যাহত রাখতে আপত্তি জানানোয় কিয়েভের সহায়তা তহবিলে টান পড়েছে। আর তাতেই সোচ্চার হয়ে উঠেছেন জেলেনস্কি।

বুধবার আকস্মিক সফর চলাকালে লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্ট গিতানাস নওসেদার সঙ্গে আলোচনা করেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট। সে সময় জেলেনস্কি সামরিক সহায়তা ও শুভেচ্ছার জন্য গিতানাসকে ধন্যবাদ জানান। আলোচনা শেষে জেলেনস্কি বলেন, সাহায্যের বিষয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর দ্বিধা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও সাহসী করে তুলছে। সেই সঙ্গে আরও শক্তিশালী আক্রমণ চালানোর সুযোগ পাচ্ছে রাশিয়া।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউক্রেনকে অবশ্যই তার আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা শক্তিশালী করতে হবে ও গোলাবারুদের সরবরাহ পুনরায় পূরণ করতে হবে। কারণ ইউক্রেনে প্রায় দুই বছরের চলা এই যুদ্ধে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা জোরদার করেছে রাশিয়া। এমন পরিস্থিতিতে লিথুয়ানিয়া, লাটভিয়া, এস্তোনিয়া ও মলদোভা হতে পারে রাশিয়ার পরবর্তী লক্ষ্য।

লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্ট গিতানাস নওসেদা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা জানি যে দীর্ঘমেয়াদী এই যুদ্ধ কতটা ক্লান্তিকর। আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ইউক্রেনের পূর্ণ বিজয় অর্জনের বিষয়ে আগ্রহী। তিনি আরও জানান, আগামী মাসে কিয়েভে এম—৫৭৭ সাঁজোয়া যান পাঠাবে তার দেশ। এটি পূর্বঘোষিত ২০০ মিলিয়ন বা ২০ কোটি ইউরোর সামরিক সহায়তা প্যাকেজের অংশ।

এর আগে বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে লিথুয়ানিয়ায় পৌঁছানোর বিষয়টি নিজেই জানান জেলেনস্কি। বলেন, আগামী কয়েকদিনে লাটভিয়া ও এস্তোনিয়াতেও যাবো। তারা আমাদের নির্ভরযোগ্য বন্ধু ও নীতিগত অংশীদার। আজ আমি তালিন ও রিগা যাওয়ার আগে ভিলনিয়াসে পৌঁছেছি।

এস্তোনিয়ায় প্রধানমন্ত্রী কাজা ক্যালাস ইউক্রেনের প্রতি তার দেশের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি সময় ও আমাদের মনোযোগ ধরে রাখতে হবে। এস্তোনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্গাস সাহকনা জানিয়েছেন, তালিন আগামী চার বছরে নিজস্ব জিডিপির ০.২৫ শতাংশ ইউক্রেনের সামরিক সহায়তা বাবদ বরাদ্দ দিতে প্রস্তুত।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পুতিনকে শেষ না করা পর্যন্ত যুদ্ধ শেষ হবে না: জেলেনস্কি

আপডেট সময় : ১২:৪১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক—  ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রুশ প্রেসিডেন্টে ভ্লাদিমির পুতিন এই যুদ্ধ শেষ করবেন না, যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা সবাই মিলে তাকে শেষ করছি। তবে আমরা প্রমাণ করেছি যে রাশিয়াকে প্রতিহত করা সম্ভব। বুধবার (১০ জানুয়ারি) আকস্মিক সফরে ইউরোপের দেশ লিথুয়ানিয়া সফরে গিয়ে এমন মন্তব্য করেন জেলেনস্কি।

টানা প্রায় দুই বছর ধরে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান চলছে। এই যুদ্ধের শুরু থেকেই ইউক্রেনকে সামরিক ও আর্থিক সহায়তা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র সহ ইউরোপের অন্য মিত্ররা। তবে যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দল ও পশ্চিমা মিত্রদের অনেকে সেই সহযোগিদা অব্যাহত রাখতে আপত্তি জানানোয় কিয়েভের সহায়তা তহবিলে টান পড়েছে। আর তাতেই সোচ্চার হয়ে উঠেছেন জেলেনস্কি।

বুধবার আকস্মিক সফর চলাকালে লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্ট গিতানাস নওসেদার সঙ্গে আলোচনা করেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট। সে সময় জেলেনস্কি সামরিক সহায়তা ও শুভেচ্ছার জন্য গিতানাসকে ধন্যবাদ জানান। আলোচনা শেষে জেলেনস্কি বলেন, সাহায্যের বিষয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর দ্বিধা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও সাহসী করে তুলছে। সেই সঙ্গে আরও শক্তিশালী আক্রমণ চালানোর সুযোগ পাচ্ছে রাশিয়া।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউক্রেনকে অবশ্যই তার আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা শক্তিশালী করতে হবে ও গোলাবারুদের সরবরাহ পুনরায় পূরণ করতে হবে। কারণ ইউক্রেনে প্রায় দুই বছরের চলা এই যুদ্ধে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা জোরদার করেছে রাশিয়া। এমন পরিস্থিতিতে লিথুয়ানিয়া, লাটভিয়া, এস্তোনিয়া ও মলদোভা হতে পারে রাশিয়ার পরবর্তী লক্ষ্য।

লিথুয়ানিয়ার প্রেসিডেন্ট গিতানাস নওসেদা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা জানি যে দীর্ঘমেয়াদী এই যুদ্ধ কতটা ক্লান্তিকর। আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ইউক্রেনের পূর্ণ বিজয় অর্জনের বিষয়ে আগ্রহী। তিনি আরও জানান, আগামী মাসে কিয়েভে এম—৫৭৭ সাঁজোয়া যান পাঠাবে তার দেশ। এটি পূর্বঘোষিত ২০০ মিলিয়ন বা ২০ কোটি ইউরোর সামরিক সহায়তা প্যাকেজের অংশ।

এর আগে বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে লিথুয়ানিয়ায় পৌঁছানোর বিষয়টি নিজেই জানান জেলেনস্কি। বলেন, আগামী কয়েকদিনে লাটভিয়া ও এস্তোনিয়াতেও যাবো। তারা আমাদের নির্ভরযোগ্য বন্ধু ও নীতিগত অংশীদার। আজ আমি তালিন ও রিগা যাওয়ার আগে ভিলনিয়াসে পৌঁছেছি।

এস্তোনিয়ায় প্রধানমন্ত্রী কাজা ক্যালাস ইউক্রেনের প্রতি তার দেশের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি সময় ও আমাদের মনোযোগ ধরে রাখতে হবে। এস্তোনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্গাস সাহকনা জানিয়েছেন, তালিন আগামী চার বছরে নিজস্ব জিডিপির ০.২৫ শতাংশ ইউক্রেনের সামরিক সহায়তা বাবদ বরাদ্দ দিতে প্রস্তুত।