বরিশাল ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রাজাপুরে প্রতিপক্ষের হামলা একই পরিবারের চারজন আহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫১:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৪ ৫৫ বার পড়া হয়েছে
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজাপুরের নৈকাঠী গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেরে একই পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। এতে আহত আহলে নৈকেঠী গ্রামের মৃত আজাহার আলী শিকদারের ছেলে আব্দুর রহিম সিকদার (৬৫), রহিম শিকদারের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা শিকদার (৪০) মেয়ে শাহান বেগম (৪৫) ও রোজিনা বেগম (৩০)।
 গত ৮ জানুয়ারি সোমবার রাত সাড়ে আটটায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহতদের মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত সূত্রে জানা গেছে, আব্দুল রহিম শিকদারের ভাই করিম সিকদার তার ভাই আব্দুর রহিমকে বাড়ি থেকে ভিটে ছাড়া করার উদ্দেশ্যে ও জমিজমা দখলের জন্য বিভিন্ন সময় মারধর ও ভয় ভীতি দেখিয়ে আসছে।
তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আব্দুর রহিম শিকদারের বসত করে ভাঙচুরা সহ একাধিক বার হামলা চালায় আব্দুল করিম সিকদার ও তার ছেলেরা। আহত সূত্রে আরো জানায় আব্দুর রহিম শিকদারের ছেলে মেয়েরা বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে  নতুন বাড়ি করায় আব্দুর রহিম শিকদার বাড়িতে তার স্ত্রী নিয়ে একা বসবাস করে।
প্রতিপক্ষ আব্দুল করিম সিকদার এই সুজগে তার ভাই আব্দুর রহিম কে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করে  জমি জমা আত্মসাৎ করার জন্য একের পর এক হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল।এ ঘটনারই জেরে গত ৭ তারিখ তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে আব্দুর রহিম শিকদারকে মারধর করে ও ঘরে থাকা মালামাল জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
এ নিয়ে আব্দুর রহিম শিকদারের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা ও মেয়েরা আব্দুল করিম সিকদারকে জিজ্ঞাসা করতে গেলে প্রতিপক্ষ আব্দুল করিম সিকদার ও তার ছেলে মেয়েরা মারধর সহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
 আর এরই ধারাবাহিকতায় ৮ তারিখ সোমবার দিন রাত সাড়ে আটটায় আব্দুর রহিম শিকদারের ঘরের দরজা ভেঙে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে প্রতিপক্ষ করিম শিকদার ও তার ছেলে তারেক, জামাই ফেরদৌস, মেয়ে নাজমা, স্ত্রীর জেসমিন বেগম, গিয়াস উদ্দিন, লিটন সহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজন ধারালো দা ও রামদা দিয়ে আব্দুর রহিম তার ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা শিকদার মেয়ে শাহানা বেগম ও রোজিনা বেগমকে এলোপাতাড়ি ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।
পরে আহতদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসতে মুমূর্ষ অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় গুরুতর আহত সাইফুল ইসলাম রাজা ও তার বোন শাহান বেগমকে গুরুতর অবস্থায় রাজাপুর  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্ররেণ করে।
বর্তমানে আহত সাইফুল ইসলাম রাজা ও তার বোন শাহানা বেগম শেবাচিমের অর্থপেডিক ওয়ার্ডে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে হামলার পরে প্রতিপক্ষ তারেক শিকদার পুলিশের হাতে আটক হয়েছে বলে জায়ায়।  এ বিষয়ে আহত পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশ প্রশাসনের সার্বিক সহায়তা কামনা করছে ভুক্তভোগীরাভাই আমার ভাগিনা ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

রাজাপুরে প্রতিপক্ষের হামলা একই পরিবারের চারজন আহত

আপডেট সময় : ১২:৫১:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৪
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজাপুরের নৈকাঠী গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেরে একই পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। এতে আহত আহলে নৈকেঠী গ্রামের মৃত আজাহার আলী শিকদারের ছেলে আব্দুর রহিম সিকদার (৬৫), রহিম শিকদারের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা শিকদার (৪০) মেয়ে শাহান বেগম (৪৫) ও রোজিনা বেগম (৩০)।
 গত ৮ জানুয়ারি সোমবার রাত সাড়ে আটটায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহতদের মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত সূত্রে জানা গেছে, আব্দুল রহিম শিকদারের ভাই করিম সিকদার তার ভাই আব্দুর রহিমকে বাড়ি থেকে ভিটে ছাড়া করার উদ্দেশ্যে ও জমিজমা দখলের জন্য বিভিন্ন সময় মারধর ও ভয় ভীতি দেখিয়ে আসছে।
তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আব্দুর রহিম শিকদারের বসত করে ভাঙচুরা সহ একাধিক বার হামলা চালায় আব্দুল করিম সিকদার ও তার ছেলেরা। আহত সূত্রে আরো জানায় আব্দুর রহিম শিকদারের ছেলে মেয়েরা বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে  নতুন বাড়ি করায় আব্দুর রহিম শিকদার বাড়িতে তার স্ত্রী নিয়ে একা বসবাস করে।
প্রতিপক্ষ আব্দুল করিম সিকদার এই সুজগে তার ভাই আব্দুর রহিম কে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করে  জমি জমা আত্মসাৎ করার জন্য একের পর এক হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল।এ ঘটনারই জেরে গত ৭ তারিখ তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে আব্দুর রহিম শিকদারকে মারধর করে ও ঘরে থাকা মালামাল জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
এ নিয়ে আব্দুর রহিম শিকদারের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা ও মেয়েরা আব্দুল করিম সিকদারকে জিজ্ঞাসা করতে গেলে প্রতিপক্ষ আব্দুল করিম সিকদার ও তার ছেলে মেয়েরা মারধর সহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
 আর এরই ধারাবাহিকতায় ৮ তারিখ সোমবার দিন রাত সাড়ে আটটায় আব্দুর রহিম শিকদারের ঘরের দরজা ভেঙে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে প্রতিপক্ষ করিম শিকদার ও তার ছেলে তারেক, জামাই ফেরদৌস, মেয়ে নাজমা, স্ত্রীর জেসমিন বেগম, গিয়াস উদ্দিন, লিটন সহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজন ধারালো দা ও রামদা দিয়ে আব্দুর রহিম তার ছেলে সাইফুল ইসলাম রাজা শিকদার মেয়ে শাহানা বেগম ও রোজিনা বেগমকে এলোপাতাড়ি ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।
পরে আহতদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসতে মুমূর্ষ অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় গুরুতর আহত সাইফুল ইসলাম রাজা ও তার বোন শাহান বেগমকে গুরুতর অবস্থায় রাজাপুর  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্ররেণ করে।
বর্তমানে আহত সাইফুল ইসলাম রাজা ও তার বোন শাহানা বেগম শেবাচিমের অর্থপেডিক ওয়ার্ডে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে হামলার পরে প্রতিপক্ষ তারেক শিকদার পুলিশের হাতে আটক হয়েছে বলে জায়ায়।  এ বিষয়ে আহত পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশ প্রশাসনের সার্বিক সহায়তা কামনা করছে ভুক্তভোগীরাভাই আমার ভাগিনা ।