বরিশাল ০৪:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রাশিয়ার গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিতের দাবি ইউক্রেনের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০২:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪ ৪৮ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক— বিরোধপূর্ণ আজভ সাগরে রাশিয়ার একটি অত্যাধুনিক গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করার দাবি করেছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল ভেলারি ঝালুঝনি বলেছেন, ইউক্রেনীয় বিমানবাহিনী রাশিয়ার একটি দূরপাল্লার এ-৫০ রাডার শনাক্তকারী গোয়েন্দা বিমান এবং আইএল-২০ কন্ট্রোল সেন্টারের একটি বিমান ভূপাতিত করেছে।

এ-৫০ বিমানটি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা শনাক্ত করে এবং লক্ষবস্তুতে হামলা চালাতে রুশ যুদ্ধবিমানকে সহায়তা করে।

গত বছরের ২৩ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, রাশিয়ার কাছে ‘খুব সম্ভবত ছয়টি এ-৫০ বিমান রয়েছে।’ যেগুলোর একেকটি তৈরিতে কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ হয়।

রাশিয়ার কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, বিমান ভূপাতিত হওয়ার ব্যাপারে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। তবে এক রুশ যুদ্ধ ব্লগার জানিয়েছেন, যদি সত্যিই ইউক্রেনীয় বিমানবাহিনী এই গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করে থাকে তাহলে এটি রাশিয়ার জন্য বিশাল একটি ক্ষতি হবে।

রায়বার নামের একটি জনপ্রিয় সামরিক চ্যানেল বলেছে, ‘যদি রাশিয়ার ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে ইউক্রেনের তথ্যটি সঠিক হয়— তাহলে এটি রাশিয়ার বিমানবাহিনীর জন্য আরেকটি কালো দিন হবে।’

অপর একটি চ্যানেল জানিয়েছে রাশিয়ার আইএল-২২ কমান্ড সেন্টারে ভুলক্রমে হামলা চালিয়েছেন রুশ বিমান সেনারাই। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যেসব ছবি প্রকাশ করা হয়েছে, এতে দেখা গেছে ওই কমান্ড সেন্টারটি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ইউক্রেনের সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, আজভ সাগরে রাশিয়ার বিমান ভূপাতিত করতে সূক্ষ্ম পরিকল্পনা করেছেন তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

রাশিয়ার গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিতের দাবি ইউক্রেনের

আপডেট সময় : ১১:০২:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক— বিরোধপূর্ণ আজভ সাগরে রাশিয়ার একটি অত্যাধুনিক গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করার দাবি করেছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল ভেলারি ঝালুঝনি বলেছেন, ইউক্রেনীয় বিমানবাহিনী রাশিয়ার একটি দূরপাল্লার এ-৫০ রাডার শনাক্তকারী গোয়েন্দা বিমান এবং আইএল-২০ কন্ট্রোল সেন্টারের একটি বিমান ভূপাতিত করেছে।

এ-৫০ বিমানটি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা শনাক্ত করে এবং লক্ষবস্তুতে হামলা চালাতে রুশ যুদ্ধবিমানকে সহায়তা করে।

গত বছরের ২৩ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, রাশিয়ার কাছে ‘খুব সম্ভবত ছয়টি এ-৫০ বিমান রয়েছে।’ যেগুলোর একেকটি তৈরিতে কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ হয়।

রাশিয়ার কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, বিমান ভূপাতিত হওয়ার ব্যাপারে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। তবে এক রুশ যুদ্ধ ব্লগার জানিয়েছেন, যদি সত্যিই ইউক্রেনীয় বিমানবাহিনী এই গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করে থাকে তাহলে এটি রাশিয়ার জন্য বিশাল একটি ক্ষতি হবে।

রায়বার নামের একটি জনপ্রিয় সামরিক চ্যানেল বলেছে, ‘যদি রাশিয়ার ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে ইউক্রেনের তথ্যটি সঠিক হয়— তাহলে এটি রাশিয়ার বিমানবাহিনীর জন্য আরেকটি কালো দিন হবে।’

অপর একটি চ্যানেল জানিয়েছে রাশিয়ার আইএল-২২ কমান্ড সেন্টারে ভুলক্রমে হামলা চালিয়েছেন রুশ বিমান সেনারাই। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যেসব ছবি প্রকাশ করা হয়েছে, এতে দেখা গেছে ওই কমান্ড সেন্টারটি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ইউক্রেনের সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, আজভ সাগরে রাশিয়ার বিমান ভূপাতিত করতে সূক্ষ্ম পরিকল্পনা করেছেন তারা।