বরিশাল ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

দুর্দান্ত ঢাকাকে উড়িয়ে আবারও শীর্ষে খুলনা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩০:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ ১৮০ বার পড়া হয়েছে

ক্রীড়া প্রতিবেদক— বিকালে সিলেট স্ট্রাইকার্সকে হারিয়ে খুলনা টাইগার্সকে সরিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছিল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ঘণ্টা কয়েকের ব্যবধানে হারানো জায়গা পুনরুদ্ধার করলো টাইগার্সরা। দুর্দান্ত ঢাকাকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে আবারো শীর্ষে উঠেছে খুলনা।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রান সংগ্রহ করে ঢাকা। দলের হয়ে ২১ বলে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন নাইম শেখ। জবাবে খেলতে নেমে ১৪ ওভার ৪ বলে কোনো উইকেট না হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় খুলনা।

ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে শুরু করেন এনামুল হক বিজয়। অপর প্রান্তে ঝড় তোলেন এভিন লুইসও। দুই ওপেনার মিলে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছেন এই দুই ওপেনার। তবে ১৩ বলে ২৬ রান করে বলের আঘাত পেয়ে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ থেকে উঠে যাব লুইস।

তবে তার বিদায়েও রান রেটে প্রভাব পড়েনি। তিনে নেমে আফিফ হোসেনও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন। সবমিলিয়ে ১৪ ওভার ৪ বলেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় খুলনা। বিজয় অপরাজিত ছিলেন ৪৮ বলে ৫৮ রান করে।

এর আগে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল ঢাকা। বিশেষ করে নাইম এদিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছেন। আর তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছনে সায়িম আইয়ুব। এই দুইজনে ৯ ওভারে যোগ করেছিলেন ৭৫ রান।

২১ বলে ৪১ রান করে নাইম সাজঘরের ফেরার পরই ঢাকার আকাশে শঙ্কার মেঘ জমে। মিডল অর্ডার ব্যাটারদের ব্যর্থতায় সেই মেঘ বৃষ্টি হয়ে ঝরেছে। একমাত্র অ্যালেক্স রস কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন। তবে তিনিও ২১ রানের বেশি করতে পারেননি।

শেষদিকে আরফাত সানির ১৫ রানের সৌজন্যে কোনো রকমে লড়াই করার পুঁজি পায় ঢাকা। খুলনার হয়ে ১৫ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন মোহাম্মদ নাওয়াজ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

দুর্দান্ত ঢাকাকে উড়িয়ে আবারও শীর্ষে খুলনা

আপডেট সময় : ১২:৩০:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৪

ক্রীড়া প্রতিবেদক— বিকালে সিলেট স্ট্রাইকার্সকে হারিয়ে খুলনা টাইগার্সকে সরিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছিল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ঘণ্টা কয়েকের ব্যবধানে হারানো জায়গা পুনরুদ্ধার করলো টাইগার্সরা। দুর্দান্ত ঢাকাকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে আবারো শীর্ষে উঠেছে খুলনা।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রান সংগ্রহ করে ঢাকা। দলের হয়ে ২১ বলে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন নাইম শেখ। জবাবে খেলতে নেমে ১৪ ওভার ৪ বলে কোনো উইকেট না হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় খুলনা।

ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে শুরু করেন এনামুল হক বিজয়। অপর প্রান্তে ঝড় তোলেন এভিন লুইসও। দুই ওপেনার মিলে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছেন এই দুই ওপেনার। তবে ১৩ বলে ২৬ রান করে বলের আঘাত পেয়ে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ থেকে উঠে যাব লুইস।

তবে তার বিদায়েও রান রেটে প্রভাব পড়েনি। তিনে নেমে আফিফ হোসেনও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন। সবমিলিয়ে ১৪ ওভার ৪ বলেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় খুলনা। বিজয় অপরাজিত ছিলেন ৪৮ বলে ৫৮ রান করে।

এর আগে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল ঢাকা। বিশেষ করে নাইম এদিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছেন। আর তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছনে সায়িম আইয়ুব। এই দুইজনে ৯ ওভারে যোগ করেছিলেন ৭৫ রান।

২১ বলে ৪১ রান করে নাইম সাজঘরের ফেরার পরই ঢাকার আকাশে শঙ্কার মেঘ জমে। মিডল অর্ডার ব্যাটারদের ব্যর্থতায় সেই মেঘ বৃষ্টি হয়ে ঝরেছে। একমাত্র অ্যালেক্স রস কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন। তবে তিনিও ২১ রানের বেশি করতে পারেননি।

শেষদিকে আরফাত সানির ১৫ রানের সৌজন্যে কোনো রকমে লড়াই করার পুঁজি পায় ঢাকা। খুলনার হয়ে ১৫ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন মোহাম্মদ নাওয়াজ।