বরিশাল ০৫:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদের প্রচারণা

রিপন কুমার দাস
  • আপডেট সময় : ০৯:০০:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৪৩১ বার পড়া হয়েছে

পটুয়াখালী প্রতিনিধি— পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচারণা চালাচ্ছেন মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ। প্রার্থীর প্রতীকসহ পোষ্টার টানানোর ক্ষেত্রে অন্যান্য প্রার্থীরা পলিথিন ব্যবহার না করলেও মেয়র মহিউদ্দিন সেটি-ই করছেন। গত ২৩ ফেব্রুয়ারী প্রতীক বরাদ্দের পরপরই প্রায় সকল প্রার্থীরা নির্বাচন কশিনের নিয়ম অনুযায়ী পোষ্টার ব্যবহার করলেও গতরাত থেকে মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ নির্বাচন অফিসের নির্দেশনা অমান্য করছেন। যা নিয়ে অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশনের পরিপত্র ২এর ২১নং ক্রমিকে স্পষ্টভাবে বলা আছে, “স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক প্রচার প্রচালনা পরিচালনায় এবং নির্বাচনী প্রচারনায় পোষ্টার ব্যবহারে প্লাষ্টিক দিয়ে মোড়ানো বা পোষ্টার প্লাষ্টিক পলিথিন লেমেনিটিং করে ব্যবহার না করাসহ ইতিপূর্বে নির্দেশনা প্রদান করতে হবে’। এই ধারা উল্লেখ করে প্রতিক বরাদ্দের দিন জেলা নির্বাচন অফিসার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন যে, ‘পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করা যাবেনা’।অথচ গত রাত থেকে মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ পলিথিন মোড়ানো পোষ্টার টানিয়েছে গোটা শহরে। মুহুর্তের মধ্যে বিষয়টি অন্যান্য সকল প্রার্থীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। কারণ ২৩ তারিখ থেকে গত রাত পর্যন্ত অন্যান্য প্রার্থীদের পলিথিন ছাড়া টানানো পোষ্টার গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি আর কুয়াশায় নষ্ট হয়েছে কয়েকবার।
অথচ শহরের পৌরসভা মোড়, সিঙ্গারা পয়েন্ট, কলেজ রোড, জুবিলী স্কুল সড়কসহ বেশকিছু সড়কে জগ মার্কার মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিনের টানানো পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

মেয়র প্রার্থী ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, সকালে পোস্টার লাগানো হলেও বিকালে হাল্কা বৃষ্টি হওয়ার কারনে সেই পোষ্টার নষ্ট হয়ে যায়। তাই পরেরদিন সকালে আবার পোষ্টার লাগাই তবুও পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করিনাই। কিন্তু কেন শুধু মাত্র একজন প্রার্থী তার পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করবে? এগুলো কি জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা দেখেন না? এমনিতেই জেলা নির্বাচনের কার্যক্রম নিয়ে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মিডিয়ায় আর্থিক অনিয়ম নিয়ে মেয়র মহিউদ্দিন এর পক্ষালম্বনের রিপোর্ট আসছে।

পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ জাহিদ হোসেন জানান, প্রতীক বরাদ্দের দিন জেলা নির্বাচন অফিস থেকে আমাদেরকে বলা হয়েছে পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করা যাবেনা। পোষ্টারে পলিথিন লাগানো আইনগত দন্ডনীয় অপরাদ। যে কারণে আমরা পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করিনাই।

৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ খলিলুর রহমান খলিল জানান, নির্বাচন অফিসের নিষেধাজ্ঞা থাকায় পোষ্টারে পলিথিন লাগাইনাই। দেযালে পোষ্টার আঠা পলিথিন লাগানো সম্পূর্ন নিষেধ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জগ মার্কার মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ওগুলো ভুলে লাগানো হয়েছে। যারা লাগিয়েছে তারা ভুল করেছে। আমি তাদেরকে সরিয়ে ফেলতে বলেছি।

পটুয়াখালী জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার খান আবি শাহানুর খান জানান, নির্বাচনী আচরণবিধিতে বলা হয়েছে কোন প্রার্থী তাদের পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করতে পারবে না। যদি কেউ পলিথিন ব্যবহার করে থাকে তবে আমাদের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। জগ মার্কার প্রার্থী পলিথিনসহ পোষ্টার টানিয়েছে এ ব্যপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, এমন একটা অভিযোগ পাওয়া গেছে বিষয়টি আমি দেখতেছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদের প্রচারণা

আপডেট সময় : ০৯:০০:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পটুয়াখালী প্রতিনিধি— পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচারণা চালাচ্ছেন মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ। প্রার্থীর প্রতীকসহ পোষ্টার টানানোর ক্ষেত্রে অন্যান্য প্রার্থীরা পলিথিন ব্যবহার না করলেও মেয়র মহিউদ্দিন সেটি-ই করছেন। গত ২৩ ফেব্রুয়ারী প্রতীক বরাদ্দের পরপরই প্রায় সকল প্রার্থীরা নির্বাচন কশিনের নিয়ম অনুযায়ী পোষ্টার ব্যবহার করলেও গতরাত থেকে মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ নির্বাচন অফিসের নির্দেশনা অমান্য করছেন। যা নিয়ে অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশনের পরিপত্র ২এর ২১নং ক্রমিকে স্পষ্টভাবে বলা আছে, “স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক প্রচার প্রচালনা পরিচালনায় এবং নির্বাচনী প্রচারনায় পোষ্টার ব্যবহারে প্লাষ্টিক দিয়ে মোড়ানো বা পোষ্টার প্লাষ্টিক পলিথিন লেমেনিটিং করে ব্যবহার না করাসহ ইতিপূর্বে নির্দেশনা প্রদান করতে হবে’। এই ধারা উল্লেখ করে প্রতিক বরাদ্দের দিন জেলা নির্বাচন অফিসার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন যে, ‘পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করা যাবেনা’।অথচ গত রাত থেকে মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ পলিথিন মোড়ানো পোষ্টার টানিয়েছে গোটা শহরে। মুহুর্তের মধ্যে বিষয়টি অন্যান্য সকল প্রার্থীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। কারণ ২৩ তারিখ থেকে গত রাত পর্যন্ত অন্যান্য প্রার্থীদের পলিথিন ছাড়া টানানো পোষ্টার গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি আর কুয়াশায় নষ্ট হয়েছে কয়েকবার।
অথচ শহরের পৌরসভা মোড়, সিঙ্গারা পয়েন্ট, কলেজ রোড, জুবিলী স্কুল সড়কসহ বেশকিছু সড়কে জগ মার্কার মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিনের টানানো পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

মেয়র প্রার্থী ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, সকালে পোস্টার লাগানো হলেও বিকালে হাল্কা বৃষ্টি হওয়ার কারনে সেই পোষ্টার নষ্ট হয়ে যায়। তাই পরেরদিন সকালে আবার পোষ্টার লাগাই তবুও পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করিনাই। কিন্তু কেন শুধু মাত্র একজন প্রার্থী তার পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করবে? এগুলো কি জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা দেখেন না? এমনিতেই জেলা নির্বাচনের কার্যক্রম নিয়ে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মিডিয়ায় আর্থিক অনিয়ম নিয়ে মেয়র মহিউদ্দিন এর পক্ষালম্বনের রিপোর্ট আসছে।

পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ জাহিদ হোসেন জানান, প্রতীক বরাদ্দের দিন জেলা নির্বাচন অফিস থেকে আমাদেরকে বলা হয়েছে পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করা যাবেনা। পোষ্টারে পলিথিন লাগানো আইনগত দন্ডনীয় অপরাদ। যে কারণে আমরা পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করিনাই।

৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ খলিলুর রহমান খলিল জানান, নির্বাচন অফিসের নিষেধাজ্ঞা থাকায় পোষ্টারে পলিথিন লাগাইনাই। দেযালে পোষ্টার আঠা পলিথিন লাগানো সম্পূর্ন নিষেধ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জগ মার্কার মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ওগুলো ভুলে লাগানো হয়েছে। যারা লাগিয়েছে তারা ভুল করেছে। আমি তাদেরকে সরিয়ে ফেলতে বলেছি।

পটুয়াখালী জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার খান আবি শাহানুর খান জানান, নির্বাচনী আচরণবিধিতে বলা হয়েছে কোন প্রার্থী তাদের পোষ্টারে পলিথিন ব্যবহার করতে পারবে না। যদি কেউ পলিথিন ব্যবহার করে থাকে তবে আমাদের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। জগ মার্কার প্রার্থী পলিথিনসহ পোষ্টার টানিয়েছে এ ব্যপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, এমন একটা অভিযোগ পাওয়া গেছে বিষয়টি আমি দেখতেছি।