বরিশাল ০৫:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

ভোলায় গাঁজাসহ গ্রেফতার ৩ পুলিশ সদস্যকে জেল হাজতে প্রেরন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:০৩:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪ ৩৯ বার পড়া হয়েছে

ভোলা প্রতিনিধি— পাঁচ কেজি গাঁজাসহ ৩ পুলিশ সদস্যকে আটক করেছে ভোলা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। একজন সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) অন্য দু’জন কনস্টেবল। তারা হলেন পুলিশের সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) মো. রফিকুল ইসলাম ও মো. ওয়াসিম এবং আবু রাহাত। আজ তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সোমবার ১১ মার্চ) দুপুরে তাদেরকে আটক করা হয়। একদিন পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুরে তাদেরকে আদালতে তোলা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়া পুলিশের সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) মো. রফিকুল ইসলামের বাড়ি বরিশাল থানা এলাকার রূপাতলী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে। তার বাবার নাম মৃত রহিম খান। তিনি ভোলা সদর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দায়িত্বে ছিলেন। পুলিশের দুই কনস্টেবল হলেন— পটুয়াখালী থানায় কর্মরত মো. ওয়াসিম ও আবু রাহাত। ওয়াসিম বরিশালের উজিরপুর থানা এলাকার গুটিয়া ইউনিয়নের পাথনিয়া কাঠি গ্রামের মৃত হারুন মোল্লার ছেলে এবং আবু রাহাত বরিশালের বাবুগঞ্জ থানা এলাকার কেদারপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ভুতেরদিয়া গ্রামের মৃত শামসুল হক হাওলাদারের ছেলে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সদর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এক উপ—পরিদর্শক বলেন, গতকাল সোমবার দুপুরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে। ঘটনার একদিন পর আজ দুপুরে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। তিনি আরও জানান, অভিযুক্ত ৩ পুলিশের কাছ থেকে ডিবি পুলিশ ৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে মর্মে তিনি শুনেছেন। তবে উদ্ধার হওয়া মাদকের সঠিক পরিমাণ পুলিশের কোনো কর্মকর্তা নিশ্চিত করছেন না। যার কারণে মাদকের পরিমাণ নিয়ে ধ্রমজাল তৈরি হয়েছে। ভোলা কোর্টের একজন এএসআই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, তিনি জানান, ঘটনা শতভাগ সঠিক। কোর্টে চালান হওয়ার পর আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করেন। তবে এনে পুলিশের কোন কর্মকর্তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভোলায় গাঁজাসহ গ্রেফতার ৩ পুলিশ সদস্যকে জেল হাজতে প্রেরন

আপডেট সময় : ০৪:০৩:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

ভোলা প্রতিনিধি— পাঁচ কেজি গাঁজাসহ ৩ পুলিশ সদস্যকে আটক করেছে ভোলা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। একজন সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) অন্য দু’জন কনস্টেবল। তারা হলেন পুলিশের সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) মো. রফিকুল ইসলাম ও মো. ওয়াসিম এবং আবু রাহাত। আজ তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সোমবার ১১ মার্চ) দুপুরে তাদেরকে আটক করা হয়। একদিন পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুরে তাদেরকে আদালতে তোলা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়া পুলিশের সহকারী উপ—পরিদর্শক (এএসআই) মো. রফিকুল ইসলামের বাড়ি বরিশাল থানা এলাকার রূপাতলী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে। তার বাবার নাম মৃত রহিম খান। তিনি ভোলা সদর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দায়িত্বে ছিলেন। পুলিশের দুই কনস্টেবল হলেন— পটুয়াখালী থানায় কর্মরত মো. ওয়াসিম ও আবু রাহাত। ওয়াসিম বরিশালের উজিরপুর থানা এলাকার গুটিয়া ইউনিয়নের পাথনিয়া কাঠি গ্রামের মৃত হারুন মোল্লার ছেলে এবং আবু রাহাত বরিশালের বাবুগঞ্জ থানা এলাকার কেদারপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ভুতেরদিয়া গ্রামের মৃত শামসুল হক হাওলাদারের ছেলে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সদর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এক উপ—পরিদর্শক বলেন, গতকাল সোমবার দুপুরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে। ঘটনার একদিন পর আজ দুপুরে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। তিনি আরও জানান, অভিযুক্ত ৩ পুলিশের কাছ থেকে ডিবি পুলিশ ৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে মর্মে তিনি শুনেছেন। তবে উদ্ধার হওয়া মাদকের সঠিক পরিমাণ পুলিশের কোনো কর্মকর্তা নিশ্চিত করছেন না। যার কারণে মাদকের পরিমাণ নিয়ে ধ্রমজাল তৈরি হয়েছে। ভোলা কোর্টের একজন এএসআই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, তিনি জানান, ঘটনা শতভাগ সঠিক। কোর্টে চালান হওয়ার পর আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করেন। তবে এনে পুলিশের কোন কর্মকর্তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।