বরিশাল ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাবা মুক্তিযোদ্ধা না তবু ও কোটায় চাকরি তিন ছেলের যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান’র মৃত্যুবার্ষিকীতে গৌরনদীতে দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত ভোলায় হাসপাতালে লাশ রেখে পালালেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন, স্বজনদের দাবি হত্যা নলছিটিতে চাচাকে হত্যা চেষ্টা মামলায় ভাতিজা গ্রেপ্তার বিয়ের দাবিতে ছাত্রদল নেতার বাড়িতে তরুণীর অনশন মাদারীপুরে দুগ্ধপোষ্য ২ সন্তানকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে মানসিক ভারসাম্যহীন মা গৌরনদীতে পূর্ব শত্রুতার একজনকে খুপিয়ে জখম আমতলীতে গুপ্তধন দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিলো কবিরাজ ভোলায় ১১৫ পিস ইয়াবাসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুই চিকিৎসকের মধ্যে হাতাহাতি

জমির জন্য বাবার মরদেহ দাফন করতে ছেলের বাধা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৭:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪ ৩৬১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক — নীলফামারীতে জমির জন্য বাবার মরদেহ দাফন করতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলের বিরুদ্ধে। বাবার জন্য খোঁড়া কবরে ছেলে নিজে শুয়ে কবর দিতে বাধা দেয়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়।
শুক্রবার (২৯ মার্চ) নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নে ঘটে এ ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, মুজিবুর রহমানের দুই স্ত্রী রয়েছেন। মৃত্যুর আগে দ্বিতীয় স্ত্রীকে ২ শতাংশ ও ছোট ছেলেকে ৫ শতাংশ জমি লিখে দেন তিনি। প্রথম স্ত্রীর তিন ছেলের মধ্যে ওয়াজেদ আলী, খয়রাত আলী ও নওশাদ আলীকে মৌখিকভাবে ৩ শতাংশ জমি দেন। কিন্তু মৃত্যুর আগে তিন ছেলেকে দেওয়া জমি রেজিস্ট্রি করে না দেওয়ায় বাবার মরদেহ আটক করে কবরে শুয়ে পড়ে কবর দিতে বাধা দেন ছেলে নওশাদ আলী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চাপড়া ইউনিয়নের পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মাহাবুল ইসলাম।
তিনি বলেন, জমি লিখে না দেওয়ায় বাবাকে কবর দিতে বাধা প্রদানের ঘটনাটি আসলেই দুঃখজনক। এ নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় বইছে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে মুজিবুর রহমানের দাফনকাজ সম্পন্ন হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

জমির জন্য বাবার মরদেহ দাফন করতে ছেলের বাধা

আপডেট সময় : ০৭:৩৭:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক — নীলফামারীতে জমির জন্য বাবার মরদেহ দাফন করতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলের বিরুদ্ধে। বাবার জন্য খোঁড়া কবরে ছেলে নিজে শুয়ে কবর দিতে বাধা দেয়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়।
শুক্রবার (২৯ মার্চ) নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নে ঘটে এ ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, মুজিবুর রহমানের দুই স্ত্রী রয়েছেন। মৃত্যুর আগে দ্বিতীয় স্ত্রীকে ২ শতাংশ ও ছোট ছেলেকে ৫ শতাংশ জমি লিখে দেন তিনি। প্রথম স্ত্রীর তিন ছেলের মধ্যে ওয়াজেদ আলী, খয়রাত আলী ও নওশাদ আলীকে মৌখিকভাবে ৩ শতাংশ জমি দেন। কিন্তু মৃত্যুর আগে তিন ছেলেকে দেওয়া জমি রেজিস্ট্রি করে না দেওয়ায় বাবার মরদেহ আটক করে কবরে শুয়ে পড়ে কবর দিতে বাধা দেন ছেলে নওশাদ আলী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চাপড়া ইউনিয়নের পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মাহাবুল ইসলাম।
তিনি বলেন, জমি লিখে না দেওয়ায় বাবাকে কবর দিতে বাধা প্রদানের ঘটনাটি আসলেই দুঃখজনক। এ নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় বইছে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে মুজিবুর রহমানের দাফনকাজ সম্পন্ন হয়।