বরিশাল ০৯:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
উজিরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত ৩ মির্জাগঞ্জে প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন মঠবাড়িয়ায় প্রধান শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হারিছুর রহমানের সমর্থনে বার্থীতে কর্মী সমাবেশ কারাগারের ভিতরে নারী কয়েদির সঙ্গে কারারক্ষীর অনৈতিক সম্পর্ক, অতঃপর… পটুয়াখালীতে গুনী সাংবাদিক নিয়াজ মোর্শেদ সেলিম আর নেই উজিরপুরে মাদক মামলার সংবাদ প্রকাশ করায় জামিনে এসে সাংবাদিকের ওপর হামলা উজিরপুরে শুরু হলো আড়াইশো বছরের ঐতিহ্যবাহী কাটাগাছ তলার বৈশাখী মেলা জুনের মধ্যে অর্থনৈতিক অবস্থা স্বাভাবিক হবে- এমপি মেনন রাজাপুরে বৈশাখী আনন্দে ঘুড়ি উৎসব অনুষ্ঠিত

উজিরপুরে মৎস্য ঘেরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সন্ত্রাসী রাসেল গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫২:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪ ৪৬ বার পড়া হয়েছে

উজিরপুর প্রতিনিধিঃবরিশালের উজিরপুরের সাতলায় গভীর রাতে মৎস্য ঘেরে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সম্পৃক্ততা পাওয়ায় সন্ত্রাসী রাসেল হাওলাদার (৪০)কে গ্রেফতার করেছে মডেল পুলিশ। সাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীন হাওলাদার ও আসাদ হাওলাদারের সন্ত্রাসী বাহিনী রাতের আঁধারে মৎস্য ঘেরে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে কোটি টাকার ক্ষতিসাধন করার ঘটনায় সম্পৃক্ততা থাকায় তাকে আটক করা হয়। গ্রেফতার রাসেল হাওলাদার পশ্চিম সাতলা গ্রামের মোঃ জাকির হোসেন হাওলাদারের ছেলে ০৩ এপ্রিল বুধবার উজিরপুর মডেল থানার এসআই তরুণ কুমার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হারতা বজার থেকে রাসেল হাওলাদারকে গ্রেফতার করে। উল্লেখ্য গত ২০ ফেব্রুয়ারি রুবেল বালী,ইদ্রিস বালীসহ একাধিক ভূমি মালিক তাদের নিজস্ব অর্থায়নে নিজেদের ভোগদখলীয় জমিতে চলাচলের জন্য রাস্তা নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করলে ওই এলাকার সন্ত্রাসী আসাদ হাওলাদার, সোহেল হাওলাদার, ইলিয়াস হাওলাদার, মুফাত হাওলাদার, খলিল হাওলাদার, শাওন ভট্রি,কাইয়ুম ভট্রি,ফেরদৌস হাওলাদার, কিবরিয়া হাওলাদারসহ অজ্ঞাত ভারাটিয়া সন্ত্রাসী মিলে দেশীয় অস্ত্র সাজে সজ্জিত হয়ে মোহড়া দেয় এবং রাস্তা নির্মাণ কাজে বাঁধা দেয় এবং অতর্কিত হামলা চালিয়ে রুবেল বালীসহ কয়েকজনকে গুরুতর আহত করে। ঐ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী রুবেল বালী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলো। ঐ মামলার প্রধান আসামী আসাদ হাওলাদারকে পুলিশ গ্রেফতার করে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করেছিলেন। আসামী আসাদ হাওলাদার বেশ কিছুদিন হাজতবাস করে জামিনে এসে ফের বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৭ মার্চ রাতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শাহিন হাওলাদারের নেতৃত্বে আসাদ বাহিনী রুবেল বালীর বসতবাড়ি ও মাছের ঘেরে তান্ডব চালায় এবং ড্রেজারের ৪টি মেশিন, ট্রলারের ১টি মেশিন, জেনারেটরের ২ টি মেশিন, সেচ পাম্প ২ টিসহ ১১ টি মেশিন আগুন দিয়ে সম্পুর্ন পুড়ে ফেলে এবং মজুদ রাখা কয়েক শত মুরগীর খাবারের বস্তা মাছের ঘেরে ফেলে দেয় এবং কয়েক হাজার ফুট পাইপ কেটে ফেলে ওই সন্ত্রাসীরা। হামলার ঘটনায় রুবেল বালী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় অভিযুক্ত আসাদ হাওলাদার ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহীন হাওলাদারসহ ১২ জনকে আসামি করে এবং ২০/২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উজিরপুর মডেল থানার এসআই তরুণ কুমার সাংবাদিকদের জানান- হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকায় রাসেল হাওলাদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাকে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাফর আহম্মেদ জানান ঐ মামলায় যার সম্পৃক্ততা পাওয়া যাবে তাকেই গ্রেফতার করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

উজিরপুরে মৎস্য ঘেরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সন্ত্রাসী রাসেল গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৪:৫২:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪

উজিরপুর প্রতিনিধিঃবরিশালের উজিরপুরের সাতলায় গভীর রাতে মৎস্য ঘেরে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সম্পৃক্ততা পাওয়ায় সন্ত্রাসী রাসেল হাওলাদার (৪০)কে গ্রেফতার করেছে মডেল পুলিশ। সাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীন হাওলাদার ও আসাদ হাওলাদারের সন্ত্রাসী বাহিনী রাতের আঁধারে মৎস্য ঘেরে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে কোটি টাকার ক্ষতিসাধন করার ঘটনায় সম্পৃক্ততা থাকায় তাকে আটক করা হয়। গ্রেফতার রাসেল হাওলাদার পশ্চিম সাতলা গ্রামের মোঃ জাকির হোসেন হাওলাদারের ছেলে ০৩ এপ্রিল বুধবার উজিরপুর মডেল থানার এসআই তরুণ কুমার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হারতা বজার থেকে রাসেল হাওলাদারকে গ্রেফতার করে। উল্লেখ্য গত ২০ ফেব্রুয়ারি রুবেল বালী,ইদ্রিস বালীসহ একাধিক ভূমি মালিক তাদের নিজস্ব অর্থায়নে নিজেদের ভোগদখলীয় জমিতে চলাচলের জন্য রাস্তা নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করলে ওই এলাকার সন্ত্রাসী আসাদ হাওলাদার, সোহেল হাওলাদার, ইলিয়াস হাওলাদার, মুফাত হাওলাদার, খলিল হাওলাদার, শাওন ভট্রি,কাইয়ুম ভট্রি,ফেরদৌস হাওলাদার, কিবরিয়া হাওলাদারসহ অজ্ঞাত ভারাটিয়া সন্ত্রাসী মিলে দেশীয় অস্ত্র সাজে সজ্জিত হয়ে মোহড়া দেয় এবং রাস্তা নির্মাণ কাজে বাঁধা দেয় এবং অতর্কিত হামলা চালিয়ে রুবেল বালীসহ কয়েকজনকে গুরুতর আহত করে। ঐ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী রুবেল বালী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলো। ঐ মামলার প্রধান আসামী আসাদ হাওলাদারকে পুলিশ গ্রেফতার করে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করেছিলেন। আসামী আসাদ হাওলাদার বেশ কিছুদিন হাজতবাস করে জামিনে এসে ফের বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৭ মার্চ রাতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শাহিন হাওলাদারের নেতৃত্বে আসাদ বাহিনী রুবেল বালীর বসতবাড়ি ও মাছের ঘেরে তান্ডব চালায় এবং ড্রেজারের ৪টি মেশিন, ট্রলারের ১টি মেশিন, জেনারেটরের ২ টি মেশিন, সেচ পাম্প ২ টিসহ ১১ টি মেশিন আগুন দিয়ে সম্পুর্ন পুড়ে ফেলে এবং মজুদ রাখা কয়েক শত মুরগীর খাবারের বস্তা মাছের ঘেরে ফেলে দেয় এবং কয়েক হাজার ফুট পাইপ কেটে ফেলে ওই সন্ত্রাসীরা। হামলার ঘটনায় রুবেল বালী বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় অভিযুক্ত আসাদ হাওলাদার ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহীন হাওলাদারসহ ১২ জনকে আসামি করে এবং ২০/২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উজিরপুর মডেল থানার এসআই তরুণ কুমার সাংবাদিকদের জানান- হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকায় রাসেল হাওলাদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাকে বরিশাল জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাফর আহম্মেদ জানান ঐ মামলায় যার সম্পৃক্ততা পাওয়া যাবে তাকেই গ্রেফতার করা হবে।