বরিশাল ১২:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ভোট দিতে রাজি না হওয়ায় দুমকিতে জেলে বরাদ্দের গরু ছিনিয়ে নিল চেয়ারম্যান! তালতলীতে সংবাদ সংগ্রহের সময় প্রধান শিক্ষকের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত নলছিটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিপুল ভোটে বিজয়ী সালাহ উদ্দিন খান সেলিম গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল পটুয়াখালীতে মাদক ব্যবসায়ীর কথা না শোনায় মারধরের অভিযোগ গৌরনদীতে মটরসাইকেল মার্কার সমর্থনে উঠান বৈঠক দুমকিতে কাপ প্রিচ মার্কার প্রার্থী ও সমর্থকদের উপর হামলা ঝালকাঠিতে আ.লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ ১৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা মঠবাড়িয়ায় এ্যাডঃ বায়জিদ আহম্মেদ খানের দোয়াত কলম মার্কার গনজোয়ার।  নলছিটিতে এক কেজি গাঁজাসহ যুবক আটক

ভোলায় দাখিল পাশ সার্টিফিকেটে মায়ের নাম না থাকার অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৭:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ৪৬ বার পড়া হয়েছে

ভোলা প্রতিনিধি— ভোলায় দাখিল পাশের সার্টিফিকেট এর উপর মায়ের নাম না থাকার অভিযোগ উঠেছে মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে তিনি ভোলার শশীভূষণ থানার এওয়াজপুর গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব জয়নাল আবেদিনের ছেলে। তিনি ২০০৪ সালে কাশেমগঞ্জ দাখিল ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করেছেন বলে তিনি জানান। তার রেজিষ্ট্রেশন নং ২৮৯১৮৫/২০০১ রোল নং ২০৯৫৭০

স্থানীয়রা বলেন মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী জাল সার্টিফিকেট দিয়ে ভোলার শশীভূষণ থানা দিন রেজিস্টারি অফিসে পাটোয়ারীর সনদ নিয়েছে। এবং তিনি সরকারি খাস জমি অন্যের কাছে ছাপ রশিদের মাধ্যমে নোটারী পাবলিক এফিডেভিট করে বিক্রি করার অভিযোগ রয়েছে মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর এই সার্টিফিকেট জাল বলে এলাকার মানুষ দাবি করে।

এই বিষয়ে গণমাধ্যম কর্মীরা মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর সাথে মুঠো ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করলে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদেরকে জানান তার দাখিল পাশের সার্টিফিকেটের উপরে মায়ের নাম যে নাই সেটা গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে তিনি জানতে পেরেছেন গণমাধ্যম কর্মীরা তাকে প্রশ্ন করলে যে আপনার এডমিট কার্ড ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড কি আপনার কাছে আছে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদেরকে উত্তরে বলেন ২০০৪ সালে আমি কাশেমগঞ্জ ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করেছি এতদিন পর এডমিট কার্ড কোথায় আছে খোঁজ করে আপনাদেরকে জানিয়ে দেওয়া হবে এই বলে তিনি ফোনের লাইন কেটে দিয়েছেন।

এই বিষয়ে কাশেমগঞ্জ দাখিল ইসলামিয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিনকে গণমাধ্যম কর্মীরা মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর ২০০৪ সালের দাখিল পাশের সার্টিফিকেটর উপর মায়ের নাম না থাকার কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের কে বলেন মায়ের নাম সার্টিফিকেটের উপর না থাকার ঘটনা আমি কখনো শুনি নাই, তবে সার্টিফিকেটে নিজের নাম, মায়ের নাম, বাবার নামে ভুল হতে পারে কিন্তু মায়ের নাম নাই এমন ঘটনা আমি শুনি নাই।

তিনি আরো বলেন মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী যখন ফরম ফিলাপ করেন তখন সেখানে যদি মায়ের নাম না থাকতো তাহলে ওই ফরম বাতিল হয়ে যেত যাই হোক আমি ঢাকা মাদ্রাসা বোর্ডে গিয়ে মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর মায়ের নাম দাখিল পাশের সার্টিফিকেটের উপর কেন নাই সেই বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে আপনাদের কে জানিয়ে দেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভোলায় দাখিল পাশ সার্টিফিকেটে মায়ের নাম না থাকার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৯:৫৭:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

ভোলা প্রতিনিধি— ভোলায় দাখিল পাশের সার্টিফিকেট এর উপর মায়ের নাম না থাকার অভিযোগ উঠেছে মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর বিরুদ্ধে তিনি ভোলার শশীভূষণ থানার এওয়াজপুর গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব জয়নাল আবেদিনের ছেলে। তিনি ২০০৪ সালে কাশেমগঞ্জ দাখিল ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করেছেন বলে তিনি জানান। তার রেজিষ্ট্রেশন নং ২৮৯১৮৫/২০০১ রোল নং ২০৯৫৭০

স্থানীয়রা বলেন মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী জাল সার্টিফিকেট দিয়ে ভোলার শশীভূষণ থানা দিন রেজিস্টারি অফিসে পাটোয়ারীর সনদ নিয়েছে। এবং তিনি সরকারি খাস জমি অন্যের কাছে ছাপ রশিদের মাধ্যমে নোটারী পাবলিক এফিডেভিট করে বিক্রি করার অভিযোগ রয়েছে মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর এই সার্টিফিকেট জাল বলে এলাকার মানুষ দাবি করে।

এই বিষয়ে গণমাধ্যম কর্মীরা মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর সাথে মুঠো ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করলে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদেরকে জানান তার দাখিল পাশের সার্টিফিকেটের উপরে মায়ের নাম যে নাই সেটা গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে তিনি জানতে পেরেছেন গণমাধ্যম কর্মীরা তাকে প্রশ্ন করলে যে আপনার এডমিট কার্ড ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড কি আপনার কাছে আছে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদেরকে উত্তরে বলেন ২০০৪ সালে আমি কাশেমগঞ্জ ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করেছি এতদিন পর এডমিট কার্ড কোথায় আছে খোঁজ করে আপনাদেরকে জানিয়ে দেওয়া হবে এই বলে তিনি ফোনের লাইন কেটে দিয়েছেন।

এই বিষয়ে কাশেমগঞ্জ দাখিল ইসলামিয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিনকে গণমাধ্যম কর্মীরা মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর ২০০৪ সালের দাখিল পাশের সার্টিফিকেটর উপর মায়ের নাম না থাকার কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের কে বলেন মায়ের নাম সার্টিফিকেটের উপর না থাকার ঘটনা আমি কখনো শুনি নাই, তবে সার্টিফিকেটে নিজের নাম, মায়ের নাম, বাবার নামে ভুল হতে পারে কিন্তু মায়ের নাম নাই এমন ঘটনা আমি শুনি নাই।

তিনি আরো বলেন মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী যখন ফরম ফিলাপ করেন তখন সেখানে যদি মায়ের নাম না থাকতো তাহলে ওই ফরম বাতিল হয়ে যেত যাই হোক আমি ঢাকা মাদ্রাসা বোর্ডে গিয়ে মো.আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীর মায়ের নাম দাখিল পাশের সার্টিফিকেটের উপর কেন নাই সেই বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে আপনাদের কে জানিয়ে দেওয়া হবে।