বরিশাল ০১:০৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ভোট দিতে রাজি না হওয়ায় দুমকিতে জেলে বরাদ্দের গরু ছিনিয়ে নিল চেয়ারম্যান! তালতলীতে সংবাদ সংগ্রহের সময় প্রধান শিক্ষকের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত নলছিটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিপুল ভোটে বিজয়ী সালাহ উদ্দিন খান সেলিম গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল পটুয়াখালীতে মাদক ব্যবসায়ীর কথা না শোনায় মারধরের অভিযোগ গৌরনদীতে মটরসাইকেল মার্কার সমর্থনে উঠান বৈঠক দুমকিতে কাপ প্রিচ মার্কার প্রার্থী ও সমর্থকদের উপর হামলা ঝালকাঠিতে আ.লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ ১৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা মঠবাড়িয়ায় এ্যাডঃ বায়জিদ আহম্মেদ খানের দোয়াত কলম মার্কার গনজোয়ার।  নলছিটিতে এক কেজি গাঁজাসহ যুবক আটক

বানারীপাড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মহিলা মেম্বার সহ ৩ জনকে কুপিয়ে জখম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:১০:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪ ২৫১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানারীপাড়া থানাধীন ভ্রাম্ননকাঠী গ্রামে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের যে একই পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা।এতে আহত্বরা হলেন ভ্রাম্ননকাঠী গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে শহীদুল ইসলাম (৩০) শহিদুলের স্ত্রী হাফসা বেগম (২০) ও আবুল বাশার এর বোন সৈয়দ কাটি ইউনিয়নের ৭ ৮ ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মহিলা মেম্বার মনোয়ারা বেগম (৫২)। এ নিয়ে বানরীপাড়া এলাকায় তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বানারী পাড়া থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তির জন্য নিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা প্রভাবশালী হওয়ায় বানারী পারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারেনি আহতরা। পরে মুমূর্ষ অবস্থায় বরিশাল শেরে এই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত সূত্রে জানা গেছে, আবুল বাশার মিয়ার পৈতৃক সম্পত্তি নিয়ে পার্শ্ববর্তী আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামির সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামি আবুল বাশার গংদের বাড়ি থেকে বিতাড়িত করার জন্য বিভিন্ন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল ও হত্যা সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। আর এ ঘটনা নিয়ে গতকাল রবিবার দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটায় স্থানীয়দের নিয়ে একটি শালীস সীমাংসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এ সময় প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামি পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মহিলা মেম্বার মনোয়ার ও তার ভাইয়ের ছেলে শহিদুল ইসলাম ও ভাইয়ের ছেলে বউ হাফসাকে লাঠি ও ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামি, রফিক ঘরামী, রিনা বেগম, কুলসুম বেগম, সহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজন, মহিলা মেম্বার মনোয়ারা বেগমের বাম হাত সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ও শহিদুল ও তার স্ত্রী হাফসা কে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত মনোয়ারা বেগম শেবাচিমের অর্থপেডিক ওয়ার্ডে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। অপর আহতরা স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। এ বিষয়ে আহত মনোয়ারা বেগম সাংবাদিকদের জানায় হামলার পর থেকে প্রতিপক্ষরা তাদের কোন ধরনের স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নিতে দেয়নি। এবং মামলা দিলে জীবন নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারবে না বলে হুমকি ধামকি দেয় । এ বিষয়ে আহত পরিবারের পক্ষ থেকে মামলাদারের প্রস্তুতি চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

বানারীপাড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মহিলা মেম্বার সহ ৩ জনকে কুপিয়ে জখম

আপডেট সময় : ০৪:১০:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানারীপাড়া থানাধীন ভ্রাম্ননকাঠী গ্রামে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের যে একই পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা।এতে আহত্বরা হলেন ভ্রাম্ননকাঠী গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে শহীদুল ইসলাম (৩০) শহিদুলের স্ত্রী হাফসা বেগম (২০) ও আবুল বাশার এর বোন সৈয়দ কাটি ইউনিয়নের ৭ ৮ ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মহিলা মেম্বার মনোয়ারা বেগম (৫২)। এ নিয়ে বানরীপাড়া এলাকায় তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বানারী পাড়া থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তির জন্য নিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা প্রভাবশালী হওয়ায় বানারী পারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারেনি আহতরা। পরে মুমূর্ষ অবস্থায় বরিশাল শেরে এই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত সূত্রে জানা গেছে, আবুল বাশার মিয়ার পৈতৃক সম্পত্তি নিয়ে পার্শ্ববর্তী আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামির সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামি আবুল বাশার গংদের বাড়ি থেকে বিতাড়িত করার জন্য বিভিন্ন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল ও হত্যা সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। আর এ ঘটনা নিয়ে গতকাল রবিবার দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটায় স্থানীয়দের নিয়ে একটি শালীস সীমাংসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এ সময় প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামী ও রফিক ঘরামি পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মহিলা মেম্বার মনোয়ার ও তার ভাইয়ের ছেলে শহিদুল ইসলাম ও ভাইয়ের ছেলে বউ হাফসাকে লাঠি ও ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় প্রতিপক্ষ আনোয়ার ঘরামি, রফিক ঘরামী, রিনা বেগম, কুলসুম বেগম, সহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজন, মহিলা মেম্বার মনোয়ারা বেগমের বাম হাত সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ও শহিদুল ও তার স্ত্রী হাফসা কে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত মনোয়ারা বেগম শেবাচিমের অর্থপেডিক ওয়ার্ডে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। অপর আহতরা স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। এ বিষয়ে আহত মনোয়ারা বেগম সাংবাদিকদের জানায় হামলার পর থেকে প্রতিপক্ষরা তাদের কোন ধরনের স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নিতে দেয়নি। এবং মামলা দিলে জীবন নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারবে না বলে হুমকি ধামকি দেয় । এ বিষয়ে আহত পরিবারের পক্ষ থেকে মামলাদারের প্রস্তুতি চলছে।