বরিশাল ০৯:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বানারীপাড়ায় মায়ের যৌন লালসার বলি ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী বরিশালে শালিণ্য’র আয়োজনে নিরাপদ পানি বিষয়ক ক্যাম্পেইন ও নানান কর্মসূচি পালিত  পটুয়াখালী উপজেলা পরিষদে নতুন তিন মুখের বিজয়ের হাসি বেতাগীতে স্মার্ট ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে র‍্যালি ও কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত উজিরপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদ্ধোধন  উজিরপুরে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানকে বরন তালতলীতে বিজয়ী প্রার্থী মিন্টুর সমর্থককে মারধর, দোকান ভাংচুর করে লুট গৌরনদীতে মটর সাইকেলের সর্বশেষ জনসভা অনুষ্ঠিত বিজয়ী ফলাফলে নেতাকর্মীদের অতিউৎসাহিত না হওয়ার জন্য নির্দেশ দেন নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল মঠবাড়িয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় হামলার শিকার ব্যবসায়ী নিহত

পটুয়াখালীতে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৩৩:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪ ১৯ বার পড়া হয়েছে

পটুয়াখালী প্রতিনিধি : পটুয়াখালীতে ষষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ অতঃপর ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা।নিরাপত্তা ও সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে ভুক্তভোগী পরিবারের মামলা। দশমিনা উপজেলার পূর্ব আলিপুরার নজরুল মৃধার ছেলে সিজান মৃধা’র (২০) বিরুদ্ধে প্রতিবেশী সাহাবুদ্দিন মৃধার মেয়ে স্কুল পড়ুয়া ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সাদিয়া’র (১১) পর্যায়ক্রমে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বার অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেছে ধর্ষিতার মা। মামলার বিবরনীতে জানাযায় সিজান মৃধা সাদিয়াকে প্রায়সই  কু-প্রস্তাব দিত। সাদিয়া প্রত্যাখান করলে সাদিয়ার বাবাকে ও সাদিয়াকে মেরে ফেলার হুমকি দিত। ভয়ভীতি ও হুমকি-ধামকির কারনে পিতা সাহাবুদ্দিন মৃধার ও তাহার জীবনের কথা ভাবিয়া একপর্যায়ে সিজান মৃধার  সাথে প্রেম করিতে বাধ্য হয়।এদিকে সাদিয়া পাশের বাড়িতে আরবী শিখতে নিয়মিত বিকেলে তার প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে যেত।ফিরতে সন্ধ্যা হত। এই সুযোগ সিজান মৃধা সাদিয়াকে একা পাইয়া আলীপুরা ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতলা বিল্ডিং এর নির্জন ছাদে নিয়া ভয়ভীতি দেখাইয়া জোড়পূর্বক ধর্ষণ করতো।ভয়ভীতির কারনে ধর্ষণের ঘটনা সাদিয়া গোপন করে যায়।একপর্যায়ে অসুস্থ হইয়া পরিলে চিকিৎসার জন্য  ডাক্তার দেখালে মেডিকেল রিপোর্টে  ছয় মাসের অন্ত:সত্ত্বা ধরা পরে। সাদিয়ার ধর্ষণ ও অন্তঃসত্ত্বা বিষয়ে সিজান মৃূধার পিতা নজরুল মৃধার কাছে জানানো হলে তিনি গর্ভপাত করিয়ে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দু’লক্ষ টাকার প্রস্তাব করে।ভুক্তভোগী পরিবার নজরুল মৃধার প্রস্তাবে রাজি না হলে কোনরূপ সাহায্য সহযোগীতা না করিয়া উপরন্ত বাড়ি ঘর ছাড়িয়া চলিয়া যাইতে বলে, “অন্যথায় তাদের ঘাট পথ চেনা আছে, সব কিছু ম্যানেজ করিবে বলিয়া হুমকি দেয়।” ভুক্তভোগী সাদিয়া জানান আমাকে সিজান তার সাথে প্রেম করার জন্য প্রায়ই বিরক্ত করতো, প্রস্তাব দিত।তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমার বাবাকে ও আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আমাকে প্রায়ই ভয়ভীতি দেখাতো।একদিন  প্রাইভেট পরে আসার পথে আমাকে কিছু কথা বলার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের ছাদে নিয়ে আমার মুখ চেপে ধরে আমার সাথে খারাপ কাজ করে এবং বলে এগুলো কারো সাথে বললে তোকে ও তোর বাবাকে মেরে ফেলবো। এবিষয়ে ভুক্তভোগী সাদিয়ার মা মোসা: মাকছুদা বেগম  জানান আমার মেয়ের জীবন অনিষ্টকারি সিজান মৃধার বাবা নজরুল মৃধা অর্থ সম্পদশালী ও প্রভাবশালী  তার ভয়ে ও রক্তচক্ষুর কারনে এলাকার লোকজন কোন অন্যায়ের প্রতিবাদ করার মত সাহস পায় না। আমার মেয়ে সাদিয়া (১১) বৎসর বয়সের নাবালিকা শিশু। সে বর্তমান বছর আলীপুরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। সিজান আমার শিশু কন্যা সাদিয়া দেখতে সুন্দরী হওয়ায় প্রায়সই তাহাকে কু-প্রস্তাব দিলে সাদিয়া প্রত্যাখান করায় ভয়ভীতি দেখাইয়া ও তাহার সাথে সম্পর্ক না করিলে আমার স্বামীকে ও কন্যা সাদিয়াকে খুন করিয়া লাশ গুম করিয়া ফালাইবে মর্মে হুমকি দিত।তাই আমার মেয়ে এসকল ভয়ভীতির করনে সবকিছু গোপন করে গেছে।আমি আপনাদের মাধ্যমে এসবের বিচার চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পটুয়াখালীতে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

আপডেট সময় : ০৬:৩৩:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

পটুয়াখালী প্রতিনিধি : পটুয়াখালীতে ষষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ অতঃপর ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা।নিরাপত্তা ও সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে ভুক্তভোগী পরিবারের মামলা। দশমিনা উপজেলার পূর্ব আলিপুরার নজরুল মৃধার ছেলে সিজান মৃধা’র (২০) বিরুদ্ধে প্রতিবেশী সাহাবুদ্দিন মৃধার মেয়ে স্কুল পড়ুয়া ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সাদিয়া’র (১১) পর্যায়ক্রমে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বার অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেছে ধর্ষিতার মা। মামলার বিবরনীতে জানাযায় সিজান মৃধা সাদিয়াকে প্রায়সই  কু-প্রস্তাব দিত। সাদিয়া প্রত্যাখান করলে সাদিয়ার বাবাকে ও সাদিয়াকে মেরে ফেলার হুমকি দিত। ভয়ভীতি ও হুমকি-ধামকির কারনে পিতা সাহাবুদ্দিন মৃধার ও তাহার জীবনের কথা ভাবিয়া একপর্যায়ে সিজান মৃধার  সাথে প্রেম করিতে বাধ্য হয়।এদিকে সাদিয়া পাশের বাড়িতে আরবী শিখতে নিয়মিত বিকেলে তার প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে যেত।ফিরতে সন্ধ্যা হত। এই সুযোগ সিজান মৃধা সাদিয়াকে একা পাইয়া আলীপুরা ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতলা বিল্ডিং এর নির্জন ছাদে নিয়া ভয়ভীতি দেখাইয়া জোড়পূর্বক ধর্ষণ করতো।ভয়ভীতির কারনে ধর্ষণের ঘটনা সাদিয়া গোপন করে যায়।একপর্যায়ে অসুস্থ হইয়া পরিলে চিকিৎসার জন্য  ডাক্তার দেখালে মেডিকেল রিপোর্টে  ছয় মাসের অন্ত:সত্ত্বা ধরা পরে। সাদিয়ার ধর্ষণ ও অন্তঃসত্ত্বা বিষয়ে সিজান মৃূধার পিতা নজরুল মৃধার কাছে জানানো হলে তিনি গর্ভপাত করিয়ে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দু’লক্ষ টাকার প্রস্তাব করে।ভুক্তভোগী পরিবার নজরুল মৃধার প্রস্তাবে রাজি না হলে কোনরূপ সাহায্য সহযোগীতা না করিয়া উপরন্ত বাড়ি ঘর ছাড়িয়া চলিয়া যাইতে বলে, “অন্যথায় তাদের ঘাট পথ চেনা আছে, সব কিছু ম্যানেজ করিবে বলিয়া হুমকি দেয়।” ভুক্তভোগী সাদিয়া জানান আমাকে সিজান তার সাথে প্রেম করার জন্য প্রায়ই বিরক্ত করতো, প্রস্তাব দিত।তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমার বাবাকে ও আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আমাকে প্রায়ই ভয়ভীতি দেখাতো।একদিন  প্রাইভেট পরে আসার পথে আমাকে কিছু কথা বলার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের ছাদে নিয়ে আমার মুখ চেপে ধরে আমার সাথে খারাপ কাজ করে এবং বলে এগুলো কারো সাথে বললে তোকে ও তোর বাবাকে মেরে ফেলবো। এবিষয়ে ভুক্তভোগী সাদিয়ার মা মোসা: মাকছুদা বেগম  জানান আমার মেয়ের জীবন অনিষ্টকারি সিজান মৃধার বাবা নজরুল মৃধা অর্থ সম্পদশালী ও প্রভাবশালী  তার ভয়ে ও রক্তচক্ষুর কারনে এলাকার লোকজন কোন অন্যায়ের প্রতিবাদ করার মত সাহস পায় না। আমার মেয়ে সাদিয়া (১১) বৎসর বয়সের নাবালিকা শিশু। সে বর্তমান বছর আলীপুরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। সিজান আমার শিশু কন্যা সাদিয়া দেখতে সুন্দরী হওয়ায় প্রায়সই তাহাকে কু-প্রস্তাব দিলে সাদিয়া প্রত্যাখান করায় ভয়ভীতি দেখাইয়া ও তাহার সাথে সম্পর্ক না করিলে আমার স্বামীকে ও কন্যা সাদিয়াকে খুন করিয়া লাশ গুম করিয়া ফালাইবে মর্মে হুমকি দিত।তাই আমার মেয়ে এসকল ভয়ভীতির করনে সবকিছু গোপন করে গেছে।আমি আপনাদের মাধ্যমে এসবের বিচার চাই।