বরিশাল ০৯:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বানারীপাড়ায় মায়ের যৌন লালসার বলি ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী বরিশালে শালিণ্য’র আয়োজনে নিরাপদ পানি বিষয়ক ক্যাম্পেইন ও নানান কর্মসূচি পালিত  পটুয়াখালী উপজেলা পরিষদে নতুন তিন মুখের বিজয়ের হাসি বেতাগীতে স্মার্ট ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে র‍্যালি ও কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত উজিরপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদ্ধোধন  উজিরপুরে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানকে বরন তালতলীতে বিজয়ী প্রার্থী মিন্টুর সমর্থককে মারধর, দোকান ভাংচুর করে লুট গৌরনদীতে মটর সাইকেলের সর্বশেষ জনসভা অনুষ্ঠিত বিজয়ী ফলাফলে নেতাকর্মীদের অতিউৎসাহিত না হওয়ার জন্য নির্দেশ দেন নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল মঠবাড়িয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় হামলার শিকার ব্যবসায়ী নিহত

ঝালকাঠিতে চাচার দায়ের কোপে মাদ্রাসা ছাত্র খুন, আটক ১ 

বরিশাল সময় নিউজ রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৫:৩০:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪ ১৯ বার পড়া হয়েছে

নবীন মাহমুদ— ঝালকাঠি শহরতলীর বিকনা এলাকায় জমি ও ঝড়ের লাকরি নিয়ে দ্বন্দ্বে চাচা’র দায়ের কোপে মাদ্রাসা ছাত্র নিহত হয়েছে। নিহতের বাবা ও মা রক্তাক্ত জখমে মুমুর্ষ অবস্থায় বরিশাল শেরই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে ভর্তি আছে। শনিবার বেলা ১১টার দিকে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় মোস্তফা নামে একজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

ওই এলাকার হুমায়ুন কবীর বাদল জানান, ঝড়ে পড়া লাকড়ি নিয়ে বৃহস্পতিবার তর্ক হয় চাচাতোভাই আমীর হোসেন ও কবীর হাওলাদারের মধ্যে। তখন আমির হোসেনকে মারধর করলে হাতের আঙ্গুল ভেঙে যায়। ডাকচিৎকারে স্ত্রী মুক্তা বেগম ও পুত্র মাহফুজ (১৯) বের হয়ে পাল্টা আঘাত করলে কবীরের মুখমন্ডলে জখম হয়। এনিয়ে কবীর হাওলাদার ও আমীর হোসেন পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দেন। শুক্রবার সকালে সদর থানার এসআই আরেফিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শনিবার বিকেলে থানায় উভয়পক্ষকে বৈঠকে বসার নির্দেশ দেন। এনিয়ে শনিবার সকালে কবীর হাওলাদার তার বোনজামাই মোস্তফার কাছ থেকে দাও নিয়ে তার ভাই মনির ও সাদ্দামকে সাথে নিয়ে দলবদ্ধভাবে আমীরের ঘরে ঢুকে প্রথমে মাদ্রাসা পড়ুয়া মাহফুজকে পেয়ে বুকে কোপ দেয়। পরে আমীর ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগম বের হলে তাদেঁরকেও কুপিয়ে জখম করে কবির হাওলাদার। এসময় আমীরের প্রতিবন্ধী সাবালিকা কন্যা সামনে গেলে তাকেও তলপেটে লাথি মেরে ফেলে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ৩জনকেই সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহফুজকে মৃত ঘোষণা এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য আমীর হোসেন ও মুক্তা বেগমকে বরিশাল শেরই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আমীর ও মুক্তা বেগমও শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সদর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম জানান, হত্যাকান্ডে সহায়তার অভিযোগে মোস্তফা নামে একজনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। মৃতদেহ ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এখনও কোন অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ঝালকাঠিতে চাচার দায়ের কোপে মাদ্রাসা ছাত্র খুন, আটক ১ 

আপডেট সময় : ০৫:৩০:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

নবীন মাহমুদ— ঝালকাঠি শহরতলীর বিকনা এলাকায় জমি ও ঝড়ের লাকরি নিয়ে দ্বন্দ্বে চাচা’র দায়ের কোপে মাদ্রাসা ছাত্র নিহত হয়েছে। নিহতের বাবা ও মা রক্তাক্ত জখমে মুমুর্ষ অবস্থায় বরিশাল শেরই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে ভর্তি আছে। শনিবার বেলা ১১টার দিকে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় মোস্তফা নামে একজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

ওই এলাকার হুমায়ুন কবীর বাদল জানান, ঝড়ে পড়া লাকড়ি নিয়ে বৃহস্পতিবার তর্ক হয় চাচাতোভাই আমীর হোসেন ও কবীর হাওলাদারের মধ্যে। তখন আমির হোসেনকে মারধর করলে হাতের আঙ্গুল ভেঙে যায়। ডাকচিৎকারে স্ত্রী মুক্তা বেগম ও পুত্র মাহফুজ (১৯) বের হয়ে পাল্টা আঘাত করলে কবীরের মুখমন্ডলে জখম হয়। এনিয়ে কবীর হাওলাদার ও আমীর হোসেন পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দেন। শুক্রবার সকালে সদর থানার এসআই আরেফিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শনিবার বিকেলে থানায় উভয়পক্ষকে বৈঠকে বসার নির্দেশ দেন। এনিয়ে শনিবার সকালে কবীর হাওলাদার তার বোনজামাই মোস্তফার কাছ থেকে দাও নিয়ে তার ভাই মনির ও সাদ্দামকে সাথে নিয়ে দলবদ্ধভাবে আমীরের ঘরে ঢুকে প্রথমে মাদ্রাসা পড়ুয়া মাহফুজকে পেয়ে বুকে কোপ দেয়। পরে আমীর ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগম বের হলে তাদেঁরকেও কুপিয়ে জখম করে কবির হাওলাদার। এসময় আমীরের প্রতিবন্ধী সাবালিকা কন্যা সামনে গেলে তাকেও তলপেটে লাথি মেরে ফেলে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ৩জনকেই সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহফুজকে মৃত ঘোষণা এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য আমীর হোসেন ও মুক্তা বেগমকে বরিশাল শেরই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আমীর ও মুক্তা বেগমও শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সদর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম জানান, হত্যাকান্ডে সহায়তার অভিযোগে মোস্তফা নামে একজনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। মৃতদেহ ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এখনও কোন অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।